Bangladesh India Sundarban Region Cooperation Initiative
বাংলাদেশ ভারত সুন্দরবন
যৌথ উদ্যোগ
Tuesday, August 4, 2020
1 মে 2019

বাঘের গর্জন জোরালো হচ্ছে

ছবির কৃতিত্ব নোভোজিত দে

সদ্য শেষ হওয়া ব্যাঘ্রসুমারি থেকে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে সুন্দরবনের পশ্চিমবঙ্গ অংশে বাঘের সংখ্যা গত বছরের তুলনায় কমপক্ষে ১০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে। ২০১৬-১৭ সালের সুমারিতে প্রাপ্তবয়স্ক ও অপ্রাপ্তবয়স্ক সহ ১০৩ টি বাঘ পাওয়া গিয়েছিল। বাংলাদেশ সুন্দরবন অংশে, একটি জিন সংক্রান্ত গবেষণার উপর ভিত্তি করে ২০১৭ সালে বাঘের সংখ্যা ১২১ পাওয়া যায়; ২০১৫ সালে বাংলাদেশ বন বিভাগের করা জরিপে ১০৬ টি বাঘ পাওয়া গিয়েছিল।

“আমরা ভারতীয় সুন্দরবনে বাঘ গণনার কাজ সদ্য শেষ করেছি এবং ফলাফলগুলি বিশ্লেষণের জন্য ভারতের বন্যপ্রাণী ইনস্টিটিউট (ডব্লুআইআই) কে হস্তান্তর করা হয়েছে। সঠিক সংখ্যা জানতে কিছুটা সময় লাগবে” জানিয়েছেন নীলাঞ্জন মল্লিক, সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভের ফিল্ড ডিরেক্টর ও সুন্দরবনে বাঘ গণনার নোডাল অফিসার।তবে মল্লিক স্বীকার করেছেন যে সুন্দরবন জাতীয় উদ্যান এবং সজনেখালী রেঞ্জের কিছু এলাকায় প্রথমবার বাঘের দেখা পাওয়া গেছে।বিশ্বজিত রায়চৌধুরী, বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞ এবং পশিমবঙ্গ বন্যপ্রাণী বোর্ডের সদস্য যিনি সক্রিয়ভাবে এই গণনার সাথে যুক্ত ছিলেন, তিনি অনুমান করছেন যে “ভারতীয় সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা কমপক্ষে ১০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে”।

পশ্চিমবঙ্গের বন বিভাগের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাও পোর্টালকে বলেছেন যে ২০১৮ সালের ব্যাঘ্রসুমারিতে এই সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। “গত বছরের তুলনায় আমরা এবার ক্যামেরা ফাঁদের সংখ্যা দ্বিগুণ করেছিলাম। আগের বার যেখানে প্রতি ৪ বর্গ কিমিতে একটি ক্যামেরা ফাঁদ ছিল এবার সেখানে মাত্র ২ বর্গ কিমিতে একটা ক্যামেরা ছিল;তাই জরিপটি আগের বারের তুলনায় আরও শক্তিশালী এবং বাঘের ছবিও আরো বেশী পাওয়া গেছে; ফলে এমন বাঘও থাকতে পারে যাকে আমরা পূর্বের গণনায় আমরা ধরতে পারিনি”, এক কর্মকর্তা বললেন। আধিকারিক আরও যোগ করলেন যে ” সদ্য শেষ হওয়া গণনায় প্রাপ্তবয়স্ক ও কম বয়সী বাঘের সংখ্যা দেখে মনে হচ্ছে ভারতীয় সুন্দরবনে বাঘের একটি টেকসই জনগোষ্ঠী আছে”।

ওয়াইল্ড লাইফ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (ডব্লু.আই.আই) -এর এক বিজ্ঞানী কামার কুরেশি বললেন, “বাঘের সঠিক সংখ্যা নির্ধারণের জন্য তারা যে সব প্রাণী বাঘের শিকার হয় সেইসব প্রাণীদেরও গণনা করছেন”l কোন এলাকায় সর্বাধিক কতগুলো বাঘ থাকতে পারে তা বুঝতে এলাকাটিত়ে বাঘের শিকারযোগ্য কত প্রাণী আছে তা একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশক হিসেবে বিবেচিত হয়। ডব্লু.আই.আই সূত্র অনুযায়ী, যদিও সমগ্র সুন্দরবনে বাঘের যৌথ গণনা এই বছর হবে বলে ভারত ও বাংলাদেশ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, তা এখন সম্ভব হয়নি। ঘটনাচক্রে সমগ্র সুন্দরবন, যা ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ছড়িয়ে আছে, বিশ্বব্যাপী বাঘের সংখ্যা অনুসারে পঞ্চম স্থানে রয়েছে।

যদিও ২০১৮-১৯ সালে বাংলাদেশে বাঘের জরিপ ভারতের পাশাপাশি শুরু হয়নি তবে পূর্ববর্তী দুটি জরিপের ফলাফল – একটি ক্যামেরা ফাঁদ এবং অন্যটি জেনেটিক পদ্ধতির মাধ্যমে – নির্দেশ করে যে বাংলাদেশের সুন্দরবনেও বাঘের সংখ্যা বেড়েছে। বাংলাদেশ সুন্দরবনের এক বিভাগীয় বন কর্মকর্তা সাদিনুল হাসান বললেন যে, ২০১৫-১৬ সালে প্রথমবারের মতো ক্যামেরা ফাঁদ পদ্ধতির মাধ্যমে বাঘ গণনা করা হয়েছে, যাতে ১০৬ টি বাঘ চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে।

ডারেল ইনস্টিটিউট অফ কনজারভেসন, কেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়; লন্ডন ইউনিভার্সিটি কলেজ এবং কিছু অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় বাংলাদেশের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর আব্দুল আজিজ কর্তৃক প্রকাশিত একটি গবেষণা পত্র “ইউসিং নন ইনভেসিভ জেনেটিক ডাটা টু এস্টিমেট ডেন্সিটি এন্ড দা পপুলেসন সাইজ অফ দা টাইগারস ইন বাংলাদেশ সুন্দরবন”; অনুযায়ী বাংলাদেশ সুন্দরবনে ১২১ টি বাঘের হিসাব পাওয়া গেছে । প্রকল্পের অধীনে ৫৬ জন গবেষকের দলটি ১৯৯৪ বর্গ কিলোমিটার জুড়ে খুলনা, সাতক্ষীরা, পশ্চিম বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য এবং চাঁদপাই সহ চারটি রেঞ্জ থেকে বাঘের বিভিন্ন নমুনা সংগ্রহ করেছে এবং তা আমস্টারডাম, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের নামী গবেষণা প্রতিষ্ঠান এবং শেষ পর্যন্ত লন্ডনে বিশ্লেষণের জন্য পাঠান। গবেষনা থেকে বাংলাদেশ সুন্দরবনে কমপক্ষে ১২১ টি বাঘের হদিস পাওয়া গেছে।

এর আগে ভারতের ডব্লু আইআই– য়ের বাঘ বিশেষজ্ঞ, ওয়াই ভি ঝালা উল্লেখ করেছিলেন যে ভারতীয় সুন্দরবনে বাঘের ঘনত্ব বাংলাদেশের তুলনায় বেশি; “প্রতি ১০০ বর্গ কিমি ভারতীয় সুন্দরবনের জঙ্গলে যেখানে ৪ টি বাঘ আছে সেখানে বাংলাদেশী সুন্দরবনের জঙ্গলে ২.১৭ টি বাঘ রয়েছে” বলেছিলেন ঝালা।

বাঘের সংখ্যা: বিশ্ব বনাম সুন্দরবন

• বিশ্বে বাঘের সংখ্যা ৩৮৯০ (২০১৬), ডব্লু ডব্লু এফ অনুযায়ী
• ভারতীয় সুন্দরবন ১০৩ (২০১৬-২০১৭), ৮৪ টি পূর্ণবয়স্ক
• বাংলাদেশ সুন্দরবনে ১০৬ (২০১৫)

Leave a Reply